রবিবার, ১৬ Jun ২০২৪, ০১:০৮ অপরাহ্ন

শিরোনামঃ

বিজ্ঞাপন

উপজেলা ভূমি অফিসের সার্ভেয়ারের সহযোগিতায় সরকারি জায়গায় ভবন নির্মাণ

উপজেলা ভূমি অফিসের সার্ভেয়ারের সহযোগিতায় সরকারি জায়গায় ভবন নির্মাণ

শ্রীনগর(মুন্সীগঞ্জ)সংবাদদাতাঃ-

মুন্সীগঞ্জের লৌহজং উপজেলার গোয়ালি মান্দ্রার সড়ক ও জনপদের জায়গা ও পানি উন্নয়ন বোর্ডের জায়গা দখল করে তিন তলা মার্কেট নির্মাণ চলছে। ইতিমধ্যে প্রথম তলার সাদের ঢালাই সম্পন্ন হয়েছে। লৌহজং উপজেলা সহকারি কমিশনার ভূমি মো: ইলিয়াস সিকদার বিষয়টি এড়িয়ে যান এবং সাংবাদিকদের জানান, দুইজন সার্ভেয়ার পাঠিয়েছি তারা জায়গা মেপে জানানোর কথা। উপজেলা ভূমি অফিসের সার্ভেয়ারের সহযোগিতায় সরকারি জায়গায় ভবন নির্মাণ হওয়ায় মৌছা মান্দ্রা বাজার ও আশ পাশের সাধারণ জনগণের মধ্যে হতাশা বিরাজ করছে।

পরবর্তীতে তিনি বলেন, একজন লোক এসে তাকে জানিয়েছেন এই জায়গাটি মালিকানাধীন। সার্ভেয়ার দিয়ে মেপে দেখেন যদি সরকারি জায়গা হয় তবে আমরা আর কাজ করবো না। কিন্তু ভূমি অফিসার ঐ ব্যক্তির নাম ঠিকানা ও মোবাইল নাম্বার কিছুই রাখেন নি। উল্টো যে অবৈধভাবে সরকারি জায়গায় ভবন নির্মাণ করতেছে তাদের মোবাইল নাম্বার ও ঠিকানা চেয়েছেন।

লৌহজং উপজেলা সহকারি কমিশনার ভূমি মো: ইলিয়াস সিকদার আরো জানান, আমি নিজে গিয়ে কাজ বন্ধ করে দিয়ে আসছি। পরবর্তীতে পদ্মা সেতু উদ্বোধনের কারণে ঐ দিকে আর সময় দিতে পারিনি। সেই সুযোগে হয়তবা বাকী কাজ করে ফেলেছে। যারা বিল্ডিং তৈরী করতেছে তাদেরকে ওখানে পাওয়া যায় না। কে বিল্ডিং তৈরী করছে তাও তিনি জানেন না বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন।

ফাউন্ডেশন নিয়ে একতলা ছাদ হয়ে যায়। কেউ তা খবর রাখেন না। আবার খবর রাখলেও এর কোন সঠিক উত্তর মিলছে না । মৌছা মান্দ্রা মৌজার , আর এস, ১ নং খাস খতিয়ানের আর এস দাগ ৩৯১। যাহা খাস খতিয়ানের অন্তর্ভূক্ত। প্রায় ১৫ দিন বিষয়টি নিয়ে অনুসন্ধান করলে বেশ কিছু চাঞ্চল্যকর তথ্য বেরিয়ে আসে।

একদিকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী গত মাসের ২৫ তারিখে দেশের অন্যতম স্বপ্ন পদ্মা সেতু উদ্বোধন নিয়ে প্রসাশন নিয়ে ব্যবস্থা, অন্যদিকে সরকারী ভূমি দখলে নিয়ে জ্বীনের বাদশাকেও হার মানায়, রাতের আধারে সরকারী জায়গা দখল করে ভবন নির্মাণ। কেউ মুখ খুলে বলছে না এই সড়কের পার্শ্বে কার এই ভবন? এমনও হতে পারে এই ভবন নির্মাণের পরে অধিগ্রহণভূক্ত দেখিয়ে সরকারের ফান্ড থেকে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নেয়ারও পায়তারা হতে পারে বলে আশংকা করছেন স্থানীয়রা। স্থানীয়রা বলছেন এই কাজের সাথে বড় বড় রাঘোব বোয়াল রয়েছে।

অনুসন্ধানে বেরিয়ে আসে, শ্রীনগর থানার, কুকুটিয়া ইউনিয়নের হাড়িয়া মুন্সী গ্রামের মৃত্য আঃ হাকিম বেপারীর পুত্র ফরহাদ বেপারী। ফরহাদ বেপারী নিজে কাজের সামনে না এসে লোক দিয়ে আড়ালে বসেই ভবন নির্মাণ করে যাচ্ছেন। দূর থেকে কাজের তদারকি করছেন তিনি।

এই বিষয় লৌহজং উপজেলার সার্ভেয়ার নজরুলকে সহকারি কমিশনার ভূমি মো: ইলিয়াস সিকদার ডেকে আনলে তিনি সাংবাদিকদের সামনে বলেন, আমি যাইনি সার্ভেয়ার সাইফুল গিয়েছেন। সার্ভেয়ার নজরুল ও সাইফুল দুইজনই গিয়েছেন ঐ ভূতের বিল্ডিং পরিদর্শণে। কিন্তু দু:খ জনক হলেও সত্য সাইফুল অসুস্থতার কথা বলে ছুটিতে অপরজন কিছুই জানেন না বলে জানিয়েছেন।

সহকারি কমিশনার ভূমি বলেন, আমি কাজের বিষয় অভিযোগ পেয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হই। কেউ বলতে পারেন না এই ভবন কে উঠাচ্ছে? এক সময় তিনি স্বীকার করেন এই ভবনের অংশ খাস খতিয়ান অন্তর্ভূক্ত।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




সম্পাদক ও প্রকাশক

No description available.

সম্পাদক ও প্রকাশকঃ মোঃ ওমর ফারুক চৌধুরী

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদকঃ ইঞ্জিঃ সোহরাব হোসেন শাহেদ

সহঃ ভারপ্রাপ্ত সম্পাদকঃ রিফাত আহম্মেদ

নির্বাহী সম্পাদকঃ মোল্লা মোহাম্মদ হাসান

বার্তা সম্পাদকঃ মোঃ লস্কর আলী

ব্যবস্থাপনা সম্পাদকঃ মোঃ সগির আহম্মেদ

অফিসঃ৪৮/বি, পশ্চিম যাত্রাবাড়ী,ঢাকা-১২০৪।

ওয়েব সাইট-www.bortomanjonojibon.com

নিউজ মেইলঃ newsbortomanjonojibon@gmail.com

যোগাযোগ- ০২-৭৫৪২৩১২

এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Bangla Webs